প্রশিক্ষণ সমূহ

ডিজিটাল মার্কেটিং এন্ড ইন্টারনেট মার্কেটিং

কোর্স বিবরণ
যা যা শেখানো হবে
অন্যান্য

কোর্স বিবরণ

বর্তমানে বাংলাদেশের প্রায় ৪০% মানুষ ইন্টারনেটের ব্যবহার করছে। প্রায় ২ কোটিরও বেশী মানুষ সোশ্যাল মিডিয়াতে কানেক্টেড এবং এই সংখ্যাগুলো আগামী ৫-১০ বছরে দ্বিগুণ থেকে দ্বিগুণতর হবে। কিন্তু এই ডিজিটাল মিডিয়ার প্রভাব আমাদের দৈনন্দিন জীবনে বিদ্যমান। প্রোডাক্ট রিসার্চ থেকে শুরু করে প্রোডাক্ট কেনা-বেচা এবং রিভিউ সবকিছুই এখন অনলাইন প্ল্যাটফর্মের উপর নির্ভরশীল। বর্তমানে মার্কেটিং প্ল্যাটফর্মগুলো প্রায় ২০% স্ট্রাটেজি প্রয়োগ করছে অনলাইনে। এটি কয়েক বছর পর ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধি পেলেও অবাক হওয়ার কিছু নেই।

বর্তমান সময়ে পেশা বা একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে ডিজিটাল মার্কেটিং এর চাহিদা আকাশচুম্বী বলা যায়। নিজের বিজনেসের জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং এর খুঁটিনাটি শেখার প্রয়োজনীয়তা অনেক। স্বল্প বাজেটে ডিজিটাল মার্কেটিং এর সহায়তায় কাস্টমার এনগেইজমেন্ট থেকে শুরু করে সেলস জেনারেশন কার্যক্রম গতানুগতিক ট্রেডিশনাল মার্কেটকে পিছনে ফেলে দিয়েছে। ইন্ডিয়াতে ডিজিটাল মার্কেটিং সেক্টরে প্রায় ৮ লক্ষ চাকরি বিদ্যমান, আমাদের দেশেও এই সংখ্যা নেহাৎ কম নয়। আর এই মার্কেটিং ক্ষেত্রগুলোর মধ্যে বহুল প্রচলিত ক্ষেত্রগুলো হলোঃ Social Media Marketing, Content Marketing , Search Engine Marketing, Big Data Analysis, Artificial Intelligence ইত্যাদি।

সুতরাং, বুঝতেই পারছেন ডিজিটাল মার্কেটিং -এ ক্যারিয়ার ডেভেলপ করার সুযোগ কতখানি। শুধুমাত্র যারা কোম্পানি রান করবেন কিংবা ব্যবসা করবেন তাঁরাই নয়, একটি অপার সম্ভাবনাময় ক্যারিয়ার গড়তে ইয়ুথদের জন্যও ফ্রিল্যান্স আইটির এই পরিপূর্ণ কোর্সটি হতে পারে নিজেকে ডিজিটাল মার্কেটিং জগতে যোগ্য হিসেবে গড়ে তোলার একটি সঠিক মাধ্যম।

কোর্সটি করে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে পারবেন। SEO Marketer, Content Marketer, Data Analyst  হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে পারবেন। এছাড়া নিজের ব্যবসার প্রসার ও প্রচারণার জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং স্ট্রাটেজি সহজেই আয়ত্ত করে নিতে পারবেন।

যে কেউ কোর্সটি করতে পারবেন। তবে কিছু বিষয়ে বেসিক ধারণা থাকলে আপনার জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং কোর্সটি অনেকটাই সহজ হয়ে যাবে। যেমনঃ মার্কেটিং সম্পর্কে ভালো জ্ঞান থাকতে হবে, ওয়েব ভিত্তিক বিভিন্ন তথ্য সম্পর্কে বেসিক জানা থাকতে হবে।

স্মার্ট ক্যারিয়ার হিসেবে ডিজিটাল মার্কেটিং এখন অনেকেরই পছন্দনীয় একটি সেক্টর। একাডেমিক ও কর্পোরেট লেভেল থেকে শুরু করে, অনলাইন ভিত্তিক প্রায় সকল প্রতিষ্ঠানেই নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটার। নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন, একজন দক্ষ ডিজিটাল মার্কেটার এর চাহিদা কতখানি।

আপনি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম গুলোকে কিভাবে স্মার্ট হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে, কোম্পানির মার্কেটিং, ব্র্যান্ডিং করবেন কিংবা নিজের বিজনেস গ্রো করবেন সেসব নিয়েও রয়েছে গাইডলাইন। সুতরাং, ফ্রিল্যান্স আইটির স্টেপ বাই স্টেপ কোর্সটি করে আপনি নিজেকে একজন অভিজ্ঞ ডিজিটাল মার্কেটার হিসেবে গড়ে তুলতে পারবেন।


‘ডিজিটাল মার্কেটিং’ শিখে কি করবেন?

১) ডিজিটাল মার্কেটিং শিখে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে পারবেন।
২) অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, সিপিএ মার্কেটিং করতে পারবেন।
৩) এসইও মার্কেটিং করে আয় করতে পারবেন।
৪) এসইও, সোশ্যাল মিডিয়া কিংবা অ্যানালাইটিকস যেকোনো সেক্টরে জব করতে পারবেন।
৫) আপনি যদি উদ্যোক্তা হতে চান, তবে ডিজিটাল মার্কেটিং স্ট্রাটেজি আপনার জন্য অতীব জরুরি।



কেন শিখবেন ফ্রিল্যান্স আইটি ইন্সটিটিউট থেকে?

  • দক্ষ ও অভিজ্ঞ প্রশিক্ষক দ্বারা প্রশিক্ষণের সু-ব্যবস্থা।
  • সু-সজ্জিত কম্পিউটার ল্যাব এবং জনপ্রতি আলাদা আলাদা কম্পিউটার এর ব্যবস্থা।
  • স্লাইডার ভিত্তিক প্রশিক্ষণ নয়, থাকছে হাতে কলমে প্রশিক্ষণ।
  • ফ্রিল্যান্সিং ও আউটসোর্সিং ক্যারিয়ার গড়তে পূর্ণাঙ্গ সহায়তা ও দিকনির্দেশনা প্রদান।
  • দুর্বল শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে ক্লাসের বাইরে আলাদা কেয়ার।
  • ক্লাসের সময় ল্যাবে বসে প্যাকটিস করার সুবিধা।
  • লাইফ টাইম সাপোর্ট প্রদান ও দক্ষতা অনুযায়ী ফ্রিল্যান্স আইটির টিমে কাজ করার সুবর্ণ সুযোগ।
  • বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস এর প্রোফাইল ১০০% করে দেওয়া এবং কাজ পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করা।
  • প্রশিক্ষণ শেষে অনলাইন ক্যারিয়ার গড়ার জন্য যাবতীয় সহায়তা প্রদান।

কোথায় ‘ডিজিটাল মার্কেটিং’ শিখবেনঃ

ফরিদপুরে ফ্রিল্যান্স আইটি ইন্সটিটিউট আউটসোর্সিং মার্কেটে কাজের উপযোগী করে আন্তর্জাতিক মানের কোর্স অফার করে থাকে। দক্ষ ও অভিজ্ঞ প্রশিক্ষকের তত্ত্বাবধানে শিক্ষার্থীদেরকে প্রজেক্ট ভিত্তিক প্যাক্টিক্যালি শেখানোর মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটে কাজ পেতে সার্বিক সহায়তা করে যাচ্ছে।

বিস্তারিত জানতে ফেসবুক পেজ ভিজিট করুনঃ www.facebook.com/freelanceeit

বিস্তারিত জানতে ফেসবুক গ্রুপ ভিজিট করুনঃ www.facebook.com/groups/freelanceeit

অথবা সরাসরি অফিসে চলে আসুনঃ

ফ্রিল্যান্স আইটি, মনা প্লাজা (২য় ও ৪র্থ তলা), কাঠপট্টি, ঝিলটুলী, ফরিদপুর-৭৮০০। ফোনঃ ০১৭৩২৩২৩০০৩

যা যা শেখানো হবে


অন্যান্য


কোর্স ফিঃ ৬ হাজার ৫০০ টাকা


ক্লাসের সময়ঃ সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। (২ ঘন্টা)


যোগাযোগঃ মনা প্লাজা (২য় ও ৪র্থ তলা), ফরিদশাহ্ রোড, কাঠপট্টি, ঝিলটুলী, ফরিদপুর-৭৮০০।

আপনার প্রশ্নের উত্তরঃ

১. আমি কি এই কোর্স করতে পারবো?
উত্তরঃ কেন পারবেন না? সবাই পারলে আপনিও পারবেন। কেউই শেখার পর শিখতে আসে না। সবাই শেখার জন্যই আসে। আমাদের তথ্যপ্রযুক্তির প্রশিক্ষকরা আপনাকে শেখাতে নিরলস চেষ্টা করবেন।
২. কোর্স শেষ করেই কি আমি ইনকাম করতে পারবো?
উত্তরঃ আমরা আপনাকে ১০০% ইনকামের গ্যারান্টি দিতে পারি না। তবে আপনি যদি আমাদের ইন্সট্রাকশন ফলো করে কাজ করে থাকেন তাহলে অবশ্যই ইনকাম করতে পারবেন। আর একেবারেই না পারলে ফ্রিল্যান্স আইটি ইন্সটিটিউটের টিমে কাজ করার সুযোগ তো রয়েছে।
৩. কোর্স শেষে কি আমি সাপোর্ট পাবো?
উত্তরঃ কোর্স শেষে আপনি আমাদের ইন্সটিটিউটে লাইফটাইম সাপোর্ট পাবেন।
৪. ক্লাসের সময় কি পরিবর্তন করা যাবে?
উত্তরঃ আমাদের প্রতিমাসেই বেশ কয়েকটি ব্যাচ শুরু হয়। আপনি এই ব্যাপারে আমাদের অ্যাডমিশন ডেস্ক এ কথা বলতে পারেন। আমাদের অন্য ব্যাচে সিট ফাঁকা থাকলে অবশ্যই পরিবর্তন করা যাবে।
৫. আমাকে কি মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট করে দেওয়া হবে?
উত্তরঃ আমাদের তথ্যপ্রযুক্তির প্রশিক্ষকরা আপনাকে ২টি মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট তৈরি করতে সর্বাত্মক সাহায্য করবে।
৬. কোর্স ফি ইন্সটলমেন্টে কি দিতে পারবো?
উত্তরঃ আমাদের ইন্সটিটিউটের নিয়ম হচ্ছে প্রতিটি কোর্স শুরু করার পূর্বে প্রদত্ত সম্পূর্ণ কোর্স ফি জমা দিয়ে অবশ্যই ভর্তি হতে হবে। ভর্তির পূর্বে কোন ক্লাস নেওয়া হয় না।
৭. কোর্স শেষে কি সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে?
উত্তরঃ আমাদের অফিস প্রোগ্রামে ৩ মাস এবং ৬ মাসের কোর্সে সরকার অনুমোদিত সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়। বাকী কোর্সগুলিতে আমাদের প্রাতিষ্ঠানিক সার্টিফিকেট দেওয়া হয়।
৮. নির্দিষ্ট সময়ে কোর্স শেষ করতে না পারলে কি আমাকে বের করে দেওয়া হবে?
উত্তরঃ আপনি যদি আমাদের শিক্ষার্থী হন তাহলে কখনোই আপনার উপর এরূপ নিষ্ঠুর আচরণ করা হবে না। যেহেতু আমাদের প্রতিষ্ঠান বেসরকারি সেহেতু আমাদের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য থাকবে আপনার কোর্স শেষ করে দেওয়া।